Archive for ফেব্রুয়ারি, 2018

ফেব্রুয়ারি 28, 2018

প্রেমে রাজি না হওয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়েছে শিবির ক্যাডার


প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে শিবির ক্যাডার জাহিদুল ইসলাম। সোমবার কক্সবাজারের মহেশখালীর কালারমারছড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

মহেশখালীর কালারমারছড়া আর্দশ দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী ও ফকিরজুম পাড়ার মোহাম্মদ হোছাইন-এর মেয়ে নাহিদা আক্তার (১৬) প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হোয়ানক পুর্ব হরিয়ারছড়া এলাকার জামায়াত নেতা মাওলানা লোকমান হাকিমের ছেলে শিবির ক্যাডার জাহেদুল ইসলাম গত শনিবার বিকালে নাহিদার বাড়িতে হামলা চালিয়ে নাহিদার শরীরের বিভিন্ন অংশ চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে ক্ষত-বিক্ষত করে।

গুরতর আহত নাহিদাকে প্রথমে মহেশখালী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে অবস্থার অবনতি হলে কক্সবাজার সদর হাসাপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এই ঘটনায় নাহিদার বাবা বাদী হয়ে শিবির ক্যাডার জাহিদুল ইসলামকে প্রধান আসামি করে ৭ জনের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় মামলা দায়ের করে। নাহিদার মুখে, মাথায়, বুকে, পেটে ও হাতে চাপাতির অসংখ্য আঘাত রয়েছে। নাহিদা বর্তমানে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

ফেব্রুয়ারি 25, 2018

টাঙ্গাইলে মন্দিরে অগ্নিসংযোগের গুজব: নেপথ্যে কারা?

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে ২৪ ফেব্রুয়ারি ২টি কালী মন্দিরে দুর্বৃত্তরা অগ্নিসংযোগ করেছে এই মর্মে দুটি সংবাদ মাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু অনুসন্ধানে এমন কোনো ঘটনার সত্যতা জানা যায় নি। তাই গুজব ছড়িয়ে উত্তেজনা ও হামলার পরিকল্পনা করা হচ্ছে কিনা তা নিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর মধ্যে উৎকণ্ঠা রয়েছে।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, মন্দিরে হামলার ঘটনাটি ডেইলি স্টার ছাড়া অন্য কোন পত্রিকায় প্রকাশিত হয়নি। এমন কি টাঙ্গাইলের কোন স্থানীয় পত্রিকাতেও এমন কোন সংবাদ পাওয়া যায় নি। গত ৪ ফেব্রুয়ারিও একই ধরণের সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল যার কোন সত‍্যতা পাওয়া যায় নি।

পুলিশ ও এলাকবাসী সূত্রে জানা যায়, শনিবার ভোর রাতে টাঙ্গাইলের বেকড়া উপজেলার আটগ্রাম ইউনিয়নের বেকড়া সিদ্ধেশ্বরী কালী মন্দিরে এবং ধুবড়িয়া ইউনিয়নের চকগদাধর কালী মন্দিরে দুবৃর্ত্তরা আগুন বলে গুজব রটনা করা হয়। তবে মন্দির দুটি পরিদর্শনে এমন কোন আলামত পরিলক্ষিত হয় নি।

স্থানীয় পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে জানা যায় উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে সব কয়টি মন্দিরে পুলিশ মোতায়েনসহ নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।
নাগরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) খান হাসান মোস্তফা জানান, প্রতিটি পুজা মন্ডপসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় পুলিশি তৎপড়তা বাড়ানো হয়েছে।

টাঙ্গাইলে গুজব সৃষ্টি করে অন‍্যান‍্য এলাকায় এ জাতীয় হামলা চালানোর উস্কানি দিয়ে অস্থিরতা সৃষ্টির অপচেষ্টা চলছে কিনা তা নিয়ে উৎকণ্ঠা রয়েছে।

স্থানীয় হিন্দু সম্প্রদায়ের কয়েকজনের সাথে আলাপকালে তারা টাঙ্গাইলের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ঐতিহ্যের কথা উল্লেখ করে প্রশাসনসহ সকলকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান।

ফেব্রুয়ারি 19, 2018

বাসে বায়ুত্যাগ, বিদঘুটে গন্ধে বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিতে যোগদান পণ্ড!


লালমনিরহাট, অপরাধ কণ্ঠ : মানুষ সাধারণত গোপনীয়তা বজায় রেখেই বায়ুত্যাগ করে। কেউ লোকলজ্জার তোয়াক্কা না করে কাজটি সেরে ফেলেন। তবে নিঃশব্দে বায়ু ত্যাগের ফলে যদি বিদঘুটে গন্ধ সৃষ্টি হয় তাহলে অস্বস্থিতে পড়েন সকলেই। গতকাল লালমনিরহাটে এসি বাসে এক ব্যক্তির বায়ুত্যাগে পরিবেশ ঘোলাটে হয়ে ওঠে।

জানা গেছে, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে লালমনিরহাটের আশেপাশের এলাকা থেকে নেতাকর্মীদের সমবেত করতে জেলা সভাপতি আসাদুল হাবিব দুলু কয়েকটি বাস ভাড়া করেছিলেন। জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা থেকে বাস যোগে সমাবেশে যোগ দেয়ার সময় একজন নিঃশব্দে বায়ুত্যাগ করেন। নাজুক পরিস্থিতিতে বিএনপি নেতা গোলাম মোস্তফা বায়ু ত্যাগকারীকে বাস থেকে নেমে যেতে বলেন। এ সময় ছাত্রদল নেতা কুদরত-ই-মেহেরবান যুবদল নেতা আবুল কালাম বিপ্লবকে দোষারোপ করলে সন্দেহভাজনকে বাস থেকে নামিয়ে দেয়া হয়। কিন্তু বিপ্লবকে নামানো হলেও বুড়িমারী মহাসড়কে ওঠার পর তৃতীয়বার বায়ু ত্যাগ করা হলে বিদঘুটে গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন নেতাকর্মীরা।

পরিস্থিতি ঘোলাটে হয়ে উঠলে বিএনপি নেতা ফারহান উদ্দিন পাশা বায়ু ত্যাগের জন্য ইকবাল আযম নামে অপর নেতাকে দায়ী করেন। এক পর্যায়ে উত্তপ্ত বাক-বিতণ্ডা শুরু হয় এবং অনেকে বাস থেকে নেমে যেতে শুরু করেন। অবশেষে সমাবেশে যোগদান বাতিল হয়।

ফেব্রুয়ারি 12, 2018

বিআইডব্লিউটিএ’তে চলছে সিবিএ নেতাদের ত্রাসের রাজত্ব

 

বিআইডব্লিউটিএ’তে সিবিএ নেতাদের ত্রাসের রাজত্ব চলছে। সাধারণ কর্মচারী/কর্মকর্তারা অতিষ্ঠ হয়ে উঠছে।

জানা গেছে, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) তে শ্রম আইন অনুযায়ী ৩ টি ট্রেড ইউনিয়নের বেশি ট্রেড ইউনিয়ন করার আইন না থাকলেও বিদ্যমান আইন না মেনে বেআইনীভাবে (শ্রম আইনানুযায়ী পূর্বের ইউনিয়ন হতে লিখিত পদত্যাগ দাখিল না করেই পূর্ববর্তী ইউনিয়নের সদস্যদের দিয়ে জোরপূর্বক ডি ফরমে স্বাক্ষর নিয়ে) সম্প্রতি (২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে) বিআইডব্লিউটিএ শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন নামে চতুর্থ ট্রেড ইউনিয়ন হিসেবে নতুন একটি ইউনিয়ন গঠিত হয়। যার রেজিস্ট্রশ নং-বি-২১৭৬, এরপর ইউনিয়নটি জাতীয় শ্রমিক লীগের অন্তর্ভুক্ত হয়।

ইউনিয়ন গঠনের দুইমাস পরে (এপ্রিল মাসে) সিবিএ নির্বাচন চেয়ে ইউনিয়নের পক্ষে শ্রম দপ্তরে আবেদন করা হয়। এসময় একই ব্যক্তি বর্তমান ইউনিয়নের কার্যকরী সভাপতি পদে থেকেও পূর্বের ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সিবিএ নির্বাচনে অংশ গ্রহন করবেনা মর্মে পত্র দেয়, যার ফলে বর্তমান ইউনিয়ন (রেজিঃ নং-বি-২১৭৬ কে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সিবিএ হিসেবে ঘোষণা করে শ্রম দপ্তর।এই সিবিএ’র সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন ১৯৯১ সালে অনুরূপ ভাবে গঠিত বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়ন (রেজিঃ নং-বি-১৯২৮) যা জাতীয়তাবাদী শ্রমিকদলের অন্তর্ভুক্ত ছিল, তিনি উক্ত ইউনিয়নটির সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন। তিনি সিবিএ’র সাধাররণ সম্পাদক হবার পরে দৈনিক যুগান্তরসহ বেশ কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদের শিরোণাম হয়ে সমালোচনার মুখে পড়েন।

সাধারন সম্পাদক হবার পরই তিনি নিরীহ কর্মচারীদের জিম্মি করে টেবিল বানিজ্য, বদলী বানিজ্য এবং শাখা কমিটি গঠনের নামে প্রায় কোটি টাকার বানিজ্য করেন। তার নির্যাতন থেকে দলীয় নেতা-কর্মীরাও ছাড় পাচ্ছেননা। নব গঠিত এ সিবিএ’র বয়স মাত্র ১ বছর হলেও জিএস রফিকুল ইসলাম গাড়ি কিনেছেন ৩ টি, সর্বশেষ কিনেছেন ৩৬ লক্ষ টাকা দামের নোয়া গাড়ী, বিআইডব্লিউটিএ’র জায়গা বেআইনীভাবে নিজের ছেলের নামে ডক ইয়ার্ডের কথা বলে নাম মাত্র মূল্যে লীজ নেওয়াসহ, আরিচায় বেশ কিছু জমির মালিক বনে গেছেন। শ্রম আইন অনুযায়ী ইউনিয়নের নেতাদের বদলী করা না গেলেও তিনি গায়ের জোরে বদলী করেছেন। তার কথা না শুনলেই তিনি পরিষদের নেতাদের বহিষ্কার করেন।

কেন্দ্রীয় পরিষদের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক, দপ্তর ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক, নারায়ণগঞ্জ শাখার যুগ্ম আহবায়ক’কে অগঠনতান্ত্রিক এবং বেআইনীভাবে বহিষ্কার করেন। দপ্তর ও আন্তর্জাতিক সম্পাদক কে অবৈধভাবে বহিষ্কার করলে তিনি বিজ্ঞ শ্রম আদালতে বহিষ্কার আদেশ চ্যালেঞ্জ করে মামলা দায়ের করলে বিজ্ঞ আদালত বহিষ্কার আদেশের ওপর নিষেধাজ্ঞার আদেশ দেন, শ্রম আদালতের মামলা নং-বিএলআর ৫৮৪/২০১৭।পূর্ববর্তী ইউনিয়নের কল্যাণ তহবিলের নামে জমা থাকা টাকা বর্তমান ইউনিয়নের কল্যাণ তহবিলের নামে জমা হবার পর সাধারণ সম্পাদক উক্ত (দশ লক্ষ) টাকা উত্তোলন করতে বললে তহবিলের সদস্য সচিব দিতে অস্বীকার করলে তিনি অফিস চলাকালীন সময়ে তাকে শারিরীকভাবে লাঞ্ছিত করেন। ইতোমধ্যে কল্যাণ তহবিল হতে কিছু টাকা উত্তোলিতও হয়েছে। এ ব্যাপারে মতিঝিল থানায় একটি জিডি করা হয়েছে, যার নং-২২৪১, তারিখ-৩০-০৪-২০১৭।

শ্রম আইন অনুযায়ী কোন ইউনিয়ন বা সিবিএ অফিসের কোন নিয়োগে হস্তক্ষেপ বা চাপ প্রয়োগ করতে পারবেনা বললেও তিনি ইউনিয়নের প্যাডে নিয়োগ প্রদানের জন্য তালিকা দিয়ে থাকেন এবং প্রতিটা নিয়োগে লাখ লাখ টাকার বানিজ্য করেন। গত ১৭-০৭-২০১৭ অফিস চলাকালীন সময়ে অপর ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক সনজীব কুমার দাস’কে সিবিএ’র সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে বেদম মারপিট করা হয়। এব্যাপারে সিএমএম কোর্টে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে, যার নং- সিআর ১৫৯৭/২০১৭, তারিখঃ ২৩-০৭-২০১৭। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআই (পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন) কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। আপনাদের অনুসন্ধানীমূলক প্রতিবেদনে এ ঘটনাটি নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ হলে ভুক্তভোগী কর্মচারীরা রেহাই পাবে।

ফেব্রুয়ারি 12, 2018

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফুঁসে উঠছেন খালেদা জিয়া

বিএনপির সিনিয়র নেতাদের পর এবার খালেদা জিয়া নিজেই অনুধাবন করতে পারছেন যে তার এই অবস্থার জন্য তারেক রহমানই প্রধানত দায়ী। উল্লেখ্য ২০০৮ সালে জিয়া এতিমখানা নিয়ে মামলা হওয়ার পর খালেদা জিয়ার ব‍্যক্তিগত সচিব সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন যে তারেকের পরামর্শেই এতিমখানার নামে অনুদান চাওয়া হয়।

ফালু আরও বলেছিলেন, এতিমখানার নামে এফডিআর করা ফান্ড দেখিয়ে ৭০ কোটি টাকার ঋণ নিয়েছিল তারেক রহমান। অতঃপর ২০০৬ সালে সলিমুল হক, সৈয়দ আহমেদ ও গিয়াস উদ্দিনের নামে একই টাকা ট্রান্সফার ও এফডিআর করে তিনটি ভুয়া কোম্পানির নামে সোনালী ব‍্যাংক থেকে দেড়শ কোটি টাকা ঋণ নেয়া হয়েছিল। এছাড়া কোকো জাহাজ ও ডান্ডির নামে ২০০৭ সালে তারেকের খেলাপি ঋণের পরিমাণ ছিল ৪ হাজার কোটি টাকা।

এদিকে জেল থেকে মুক্তি বিলম্বিত হলে অবিলম্বে হাসপাতালে যেতে চাচ্ছেন বেগম জিয়া। বেগম জিয়ার সঙ্গে পাঁচ আইনজীবীর সাক্ষাতে বিএনপির চেয়ারপারসন এই মনোভাব ব্যক্ত করেছেন।
আইনজীবীরা খালেদা জিয়াকে পরামর্শ দিয়েছেন তারেকের উপর অর্থ আত্মসাতের দায় চাপিয়ে দিতে।

যে আইনজীবীরা তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন তাঁরা এর সত্যতা স্বীকার করেছেন। আইনজীবীরা বেগম জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে ব্যক্তিগত চিকিৎসককে দিয়ে বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার আবেদন করেছেন।

শনিবার বিকেলে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ সহ পাঁচ জন আইনজীবী বেগম জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। জেলখানার একাধিক সূত্রগুলো বলছে, শুক্রবার কিছুটা শান্ত থাকলেও শনিবার অনেকটাই অস্থির হয়ে উঠেছেন বেগম জিয়া। সকাল থেকে অন্তত আটবার কারাগারের লোকজনকে ডেকে নানা সমস্যার কথা বলেছেন। মাঝে মধ্যেই মেজাজের খেই হারিয়ে চিৎকার চেঁচামেচি করেছেন।

বেগম জিয়া তাঁর আইনজীবীদের কাছেও তারেকের বিরুদ্ধে ক্ষোভের কথা বলেছেন।

কারা কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, কারাগারে বেগম জিয়াকে যে কক্ষ দেওয়া হয়েছে, তা আধুনিক সাঁজসজ্জায় সজ্জিত। কিন্তু বেগম জিয়া কারা কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেছেন, তার শোবার খাটটি যথেষ্ট নরম নয়। বেগম জিয়া সার্বক্ষণিক গরম পানি চান। কিন্ত তেমন ব্যবস্থা কারাগারে নেই। কারাগারের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তাঁর জন্য নিয়মিত পানি গরম করে সরবরাহ করা হচ্ছে এবং আলাদাভাবে রান্নার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বেগম জিয়া তাঁর কক্ষে রক্ষিত টেলিভিশনে হিন্দি চ্যানেল বিশেষ করে স্টার প্লাস এবং পাকিস্তানের নেট জিও চ্যানেল দেখতে চান। কিন্ত কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, কারাগারে ডিশ সুবিধা নিয়ন্ত্রিত। এখানে শুধু বাংলাদেশি চ্যানেল দেখানো যায়। আইনজীবীরা আসার আগে বেগম জিয়া কারাগারের বিভিন্ন অসুবিধা নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন। পরে আইনজীবীদেরও তিনি একই অভিযোগ করেছেন।

কারা কর্তৃপক্ষ বলছে, এখন পর্যন্ত বেগম জিয়ার বড় কোনো স্বাস্থ্যগত সমস্যা দেখা যায়নি। তবে কারা কর্তৃপক্ষের কয়েকজন কর্মচারীর কাছে তারেক রহমান ও বিএনপি নেতাদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তার কারাগারে আসার পর কোথাও বিক্ষোভ মিছিল ও জোরদার কর্মসূচি ঘোষণা না করায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

ফেব্রুয়ারি 11, 2018

খালেদার কারাদণ্ডের পর হিজড়া দলকে আন্দোলনের দায়িত্ব দিলেন তারেক !

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলায় সাজা হওয়ার পর কোনো ধরণের প্রতিবাদ, প্রতিরোধ গড়ে না তোলায় বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের উপর ক্ষুব্ধ তারেক রহমান হিজড়াদের সক্রিয় করার পদক্ষেপ নিয়েছেন। তিনি গতকাল মোবাইলে হিজড়া দলের চেয়ারপার্সন রাশিদা ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান কাজলী হিজড়াকে সরকারের বিরুদ্ধে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছেন।

জানা গেছে, হতাশ তারেক রহমান ২০১১ সালে প্রতিষ্ঠিত জাতীয়তাবাদী হিজড়া দলের নেতৃবৃন্দের সাথে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করেছেন। বৈঠকে হিজড়াদেরকে আন্দোলন ও জনমত গড়ে তোলাসহ দলে আরও পদ দেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন হিজড়া দলের চেয়ারপার্সন রাশিদাকে।

উল্লেখ্য প্রায় চার বছর আগে তারেক রহমানের নির্দেশে বিএনপি নেতা হাবিবুন্নবী সোহেলের নেতৃত্বে বিএনপি নেতারকর্মীদের লিঙ্গ পরিবর্তন করে হিজড়া হওয়ার অনুমোদন দিয়েছিলেন বলে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছিল। গত সাত বছরে জাতীয়তাবাদী হিজড়া দলের আশুলিয়াস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বর্তমানে চারশর বেশি হিজড়া নেতাকর্মী রয়েছে।

এদিকে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কারাভোগের কারণে মনোবল শক্ত রাখতে রোজা রেখেছে দলের নেতাকর্মীরা। কাজলী হিজড়া জানান, দলের চেয়ারপার্সন রাশিদার নেতৃত্বে থাকা ৬৫৮ হিজড়ার মধ্যে ৪০০ জনের মতো আজ রোজা রেখেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বকশিবাজার মোড়ে আইনজীবী, পুলিশ ও গণমাধ্যমকর্মীদের মাঝে হিজড়ারা কর্মসূচি পালন করেছে।

এদিকে, জাতীয়তাবাদী হিজড়া দলের দপ্তর সম্পাদক আবুল হিজড়া তাদের প্রেরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তি কোনো পত্রিকায় প্রকাশিত না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তারা সারাদেশে খালেদার জিয়ার মুক্তির দাবিতে কঠোর আন্দোলন করে দেশ অচল করে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন।